মহুয়া রায়চৌধুরী এবং প্রতিবেশীদের সাথে তার সামাজিক সম্পর্ক

 আমরা জানি যে চলচ্চিত্রের সেলিব্রিটিরা তাদের প্রতিবেশীদের সাথে দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করেন, তা 50 বছর আগে হোক বা এখন। তারা খুব কমই সামাজিক সমাবেশে যোগ দেয় যদি এটি একটি ব্যবসায়িক চুক্তি না হয়।



অনেকের মধ্যে আলাদা ছিলেন অভিনেত্রী মহুয়া রায়চৌধুরী। এমনকি সে যখন শিখরে ছিলেন, তখনও তিনি মাটির কাছাকাছি ছিলেন। এমন অনেক উদাহরণ আছে যেখানে আমরা দেখতে পাই যে মহুয়া রায়চৌধুরী তার প্রতিবেশীদের সাথে কতটা ঘনিষ্ঠ ছিলেন।

একটি বিবাহ বউভাত সম্পর্কিত সমাবেশ যেখানে মহুয়াকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল এবং কীভাবে তিনি অংশগ্রহণ করেছিলেন তা নীচে দেওয়া হল। বর্ণনাটি একজনের ফেসবুক পোস্ট থেকে নেওয়া।

মহুয়া রায়চৌধুরীকে কাছ থেকে দেখার স্মৃতিচারণ করেছেন শিব মুখোপাধ্যায়।
১৯৮২ সাল। পিসতুতো দাদার বিয়ে। উলটো দিকের নবনির্মিত ফ্ল্যাট বাড়ির এক তলার বাসিন্দা মহুয়া দি, পরিবার সহ।
বউভাতের দিন দুপুরে মহুয়াদি এলো। দুপুরের খাওয়াদাওয়াতে আমরাই পরিবেশন করেছিলাম। আজকের নায়িকাদের মতো নয়, সব কিছুই খেলো।এমনকি মিস্টিও! খাওয়ার সময় সবার সাথে হাসাহাসি, খাবার পর পিসেমশাইয়ের থেকে পান নিয়ে মুখে দিয়ে জমাটি আড্ডা সবার সাথে।
যাবার সময় বলে গেলো, রাতে ফিরতে দেরি হবে। তাই আসবে না।

তখন আমি ক্লাস টুয়েলভে। দিদি -ভাইয়ের সম্পর্কটা সদ্য শুরু হয়েছে, হঠাৎ দিদি নেই হয়ে গেলো!
আমার বাড়ির ৬টা বাডি পরে মহুয়াদির বাড়ি। কিন্তু, পুলিশের জন্য পিসির বাড়িতে পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছতে পারিনি!

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন